Placeholder canvas
কলকাতা শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪ |
K:T:V Clock

Placeholder canvas
Aajke | সিপিএম কি আবার ভাঙছে?
কলকাতা টিভি ওয়েব ডেস্ক Published By: 
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল, ২০২৪, ০৪:৫৫:৩৯ পিএম
  • / ১০ বার খবরটি পড়া হয়েছে

হিমালয়ে ইয়েতি, বারমুডা ট্রায়াঙ্গল ইত্যাদির মতো দুনিয়ার বিভিন্ন অদ্ভুত ধাঁধার মধ্যে এক অন্যতম ধাঁধা হল কমিউনিস্ট পার্টি এতবার ভাঙে কেন? এদেশে নয়, দেশে দেশে কমিউনিস্ট পার্টি ভেঙেছে, একবার নয় বহুবার। ধরুন ইংল্যান্ডের লেবার পার্টি বা আমেরিকার রিপাব্লিকান পার্টি বা বাংলাদেশের আওয়ামি লিগ বা পাকিস্তানের পিপলস পার্টি কতবার ভেঙেছে? বাইরের কথা ছেড়েই দিন আমাদের দেশে কংগ্রেসই বা এই ১৮৮৫ থেকে কতবার ভেঙেছে? কিন্তু ১৯২৫-এ গড়ে ওঠা আমাদের দেশের কমিউনিস্ট পার্টি এতবার ভেঙেছে যে তা নিয়ে মশকরাও শোনা যায়, নাকি দল ভাঙার পরে আবার ঐক্য আলোচনাতে বসে দলের আর এক অংশ দল থেকে বেরিয়ে আরেকটা কমিউনিস্ট পার্টি তৈরি করে ফেলেছিল। এবং অন্য দলে ভাঙনের কারণ খুব স্পষ্ট, এক নেতার নেতৃত্বে তাঁর কিছু অনুগামী বেরিয়ে এসে বলে দলে গণতন্ত্র নেই, দমবন্ধ হয়ে আসছিল, দলে নেতৃত্বের নামে চাপিয়ে দেওয়া চলছিল, দলের নেতৃত্ব স্বৈরাচারী ইত্যাদি ইত্যাদি তাই আমরা আজ থেকে এক নতুন দল গঠন করলাম। অমন যে অমন সোনার চাঁদ হিরের টুকরো অজিত পাওয়ার এনসিপি ভেঙে বেরিয়ে এলেন, তিনিও এই একই কথাই বলেছেন। কিন্তু কমিউনিস্ট পার্টির ভাঙনের কারণ শুনলে আপনার মাথা ঘুরবে, চোখে সর্ষেফুলও দেখতেই পারেন। ওরা জাতীয় গণতান্ত্রিক বিপ্লব চায়, আমরা চাই জণগণতান্ত্রিক বিপ্লব, ওরা সংশোধনবাদী আমরা বিপ্লববাদী। এই সব বলে দিস্তে দিস্তে দলিল দেওয়ার পরে সিপিআই ভেঙে সিপিএম তৈরি হয়েছিল সেই ১৯৬৪-তে। কিন্তু সিপিএমও জণগণতান্ত্রিক বিপ্লব করেনি, সিপিআইও জাতীয় গণতান্ত্রিক বিপ্লব করে ফেলেছে বলে কোনও খবর নেই। দল ভাঙার দু’ বছরের মধ্যেই দু’ দল মিলে সরকার তৈরি করেছে। একজন সংশোধনবাদী অন্যজন বিপ্লববাদী কিন্তু বছর তিরিশেক একসঙ্গে বাম সরকার চালিয়েছেন, একই সঙ্গে লালবাতি লাগানো গাড়িতে চড়েছেন, ভোটে লড়েছেন, একই নির্বাচনী ম্যানিফেস্টো নিয়ে জিতেছেন, হেরেছেন, কিন্তু বিপ্লবও হয়নি, বিচ্ছেদও হয়নি। মাঝেমধ্যে মন কষাকষি হয়েছে, কিন্তু আবার মিটে গেছে। এই তো এই বারেই সংশোধনবাদীরা বসিরহাট চেয়েছিল, না পেয়ে ক্ষুরঘর্ষণম ক্ষুরঘর্ষণম ছিড়িক ছিড়িক পানি ছেটাল, তারপর বসিরহাটের বদলে শোনা যাচ্ছে ঘাটাল দিয়ে শান্ত করা হচ্ছে। সিপিএম থেকে সিপিআইএমএল ভাঙার কাহিনি তো আরও রোমহর্ষক। জণগণতান্ত্রিক বিপ্লবের বদলে নকশালদের দাবি নয়া গণতান্ত্রিক বিপ্লব। সেই নকশালেরা আরও রকমফের বিপ্লব এবং আরও কত শব্দ মায়াজাল ছড়িয়ে কত টুকরো যে হয়েছেন তার হিসেব কারও কাছেই নেই। এবং তাঁরা কখনও সিপিএম, কখনও তৃণমূল, কখনও জনতা পার্টি, কখনও এমনকী বিজেপির হাত ধরেছেন, সে এক কহানি। কাজেই কমিউনিস্ট পার্টিতে ভাঙন এক হাঁচি কাশি মাথা ধরার মতো সাধারণ অসুখ, যা যে কোনওদিন বৃষ্টি হয়ে ঝরে পড়ে। আজ সেটাই বিষয় আজকে, সিপিএম কি আবার ভাঙছে?

সিপিএম ভাঙছে এই খবরটা পেলাম কোত্থেকে? মাত্র গতকালই কেরালার মুখ্যমন্ত্রী সিপিএম দলের পলিটব্যুরো নেতা পিনারাই বিজয়ন এক সাংবাদিক বৈঠকে যা বলেছেন তার মধ্যেই ওই ভাঙনের বীজ লুকিয়ে আছে। তিনি বলেছেন, কংগ্রেসই প্রথমে এই অরবিন্দ কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিল, যার ভিত্তিতে আজ ইডি এই কাজটা করতে পেরেছে।

আরও পড়ুন: যাঁরা বলছেন ৩৭০ পাবেন, তাঁরা এখনও বাংলার দুটো আসনের প্রার্থী দিতে হাঁপিয়ে যাচ্ছেন?

তিনি ইংরিজিতে যা বলেছেন তা হল, “It was the Congress which raised the allegation against the Delhi government. It was the Congress which filed a complaint in that regard, paving the way for the probe by the Enforcement Directorate,” খুব পরিষ্কার। তো আজ বাংলার কমরেডরা কী করছেন? ইডি অফিসের সামনে জমায়েত করে দাবি করছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে জেলে পোরা হোক। তার মানে কেরালা সিপিএম আর বাংলার সিপিএম দুটো আলাদা পথে চলেছে। আবার দেখুন বিজয়ন রাহুল গান্ধীকে নিয়ে কী বলেছেন? “But what’s the role of Rahul Gandhi? We have seen many atrocities being carried out in the country, and we could see Annie Raja in the forefront fighting against those. But have we seen Rahul Gandhi anywhere like that? Where to contest is their wish. But the impropriety of Rahul Gandhi contesting from here was discussed by the whole country. Why is he not fighting the BJP and contesting here?” রাহুল গান্ধী সারা দেশে বিভিন্ন অত্যাচার অনাচারের বিরুদ্ধে তো লড়ছেন না, উনি বিজেপির বিরুদ্ধেও লড়ছেন না, কেরালাতে এসে আমাদের বিরুদ্ধে লড়ছেন। এদিকে কমরেড সেলিম, কমরেড শতরূপ, কমরেড মীনাক্ষীদের নিয়ে রাহুল গান্ধীর সঙ্গে দেখা করে তাঁর ন্যায়ের জন্য লড়াইকে পদযাত্রাকে, সমর্থন জানিয়ে এলেন। মানে খুব পরিষ্কার যে কমরেড সেলিম, কমরেড পিনারাই বিজয়ন দুজনেই সিপিএম-এর পলিটব্যুরো সদস্য হতেই পারেন, কিন্তু চলছেন এক্কেবারে উল্টো পথে। এই উল্টো পথে চলাই কি সিপিএম-এ আবার ভাঙন ডেকে আনবে? আমরা আমাদের দর্শকদের প্রশ্ন করেছিলাম, কেরালাতে মুখ্যমন্ত্রী বিজয়ন রোজ কংগ্রেসের তীব্র সমালোচনা করছেন, এ রাজ্যের কমরেড সেলিম সেই কংগ্রেসের হাত ধরে মমতাকে জেলে ঢোকানোর দাবি করছেন আবার দিল্লিতে একই মঞ্চে বসে কমরেড সীতারাম ইয়েচুরি, তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন বা সাগরিকা ঘোষ বিরোধী ঐক্যের কথা বলছেন, এগুলোকে আপনারা কীভাবে দেখছেন? শুনুন মানুষজন কী বলেছেন।

নির্বাচন হয়ে যাক, তৈরি থাকুন, লাতিন আমেরিকার বাম আন্দোলনের ধারার সঙ্গে গ্রামসি, দেরিদা ফুকো মিশিয়ে নতুন কোনও বিপ্লবকে কেন্দ্র করে আবার কমিউনিস্ট পার্টিতে ভাঙন হবে। কী বলছেন, ওগুলো আপনি জানেন না? চাপ নেবেন না, ওঁরাও জানেন না, এসব নেহাতই কথার কথা। আসলে যযেততে, যখন যেমন, তখন তেমন পথে চলতে হলে এসব ভড়কিবাজি দিতে হয়। মাত্র ১৯৬৪-তে আগুনখেকো নকশাল নেতা সিপিএম-এর তেনালি কনভেনশনকে তেনালির ছেনালি বলেছিলেন, এখন তিনি সিপিএম-এর সবথেকে বড় তাত্ত্বিক। এসব হয়, সংসদীয় রাজনীতির ময়দানে নামা কমিউনিস্ট পার্টিতে এসব হয়।

পুরনো খবরের আর্কাইভ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০ ১১ ১২ ১৩
১৪ ১৫ ১৬ ১৭ ১৮ ১৯২০
২১ ২২ ২৩ ২৪ ২৫ ২৬ ২৭
২৮ ২৯ ৩০  
আর্কাইভ

এই মুহূর্তে

রাজভবনে নিজের পছন্দমতো শিক্ষাবিদদের বৈঠকে ডাকলেন রাজ্যপাল
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
সন্দেশখালিতে সিবিআই, কথা সঙ্গে গ্রামবাসীদের
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
বিস্ফোরণে উড়ল দোকান, ঝলসে গেল মালিক
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
অধীরকে ঘিরে গো ব্যাক স্লোগান নওদায়
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
ভাঙড়ে তৃণমূল নেতা শওকত মোলার বিরুদ্ধে পড়ল পোস্টার
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
কলকাতার তাপমাত্রা পৌঁছবে ৪১ ডিগ্রিতে, মঙ্গল থেকে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি!
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
শিশুখাদ্যে চিনি মেশানোর অভিযোগ সুইস সংস্থা সেরেল্যাকের বিরুদ্ধে
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
দ্বিতীয় দফা ভোটের আগে দার্জিলিংয়ে জোড়া সভা শাহ-রাজনাথের
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
তৃণমূলের বৈঠকে বিজেপি প্রার্থীর ভাই
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
ভালো সুযোগ আসছে এইসব রাশির জাতকের জীবনে 
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
ভোট শেষ হতেই বোমাবাজিতে উত্তপ্ত শীতলকুচি
শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
ভোট শেষ হওয়ার দুঘন্টার মধ্যেই বিজয় মিছিল তৃণমূল–বিজেপি
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২৪
প্রথম দফায় ১০২ কেন্দ্রে কোন কোন হেভিওয়েটের ভাগ্য চূড়ান্ত হল
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২৪
Stadium Bulletin | স্টার্ককে যদি হাবাসের হাতে ছাড়া যায়?
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২৪
এসএসসি মামলার রায় সোমবার
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২৪
© R.P. Techvision India Pvt Ltd, All rights reserved.   Privacy Policy
Developed By KolkataTV Team